আজ মঙ্গলবার, ৮ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ খ্রিস্টাব্দ
 / আন্তর্জাতিক / ইয়েমেন গৃহযুদ্ধ থেকে সৌদির ফিরে আসার পথ রুদ্ধ: বিভক্তি ও দ্বন্দ্বের নতুন সমীকরণ
ইয়েমেন গৃহযুদ্ধ থেকে সৌদির ফিরে আসার পথ রুদ্ধ: বিভক্তি ও দ্বন্দ্বের নতুন সমীকরণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
Published : Tuesday, 5 December, 2017 at 3:15 AM
ইয়েমেন গৃহযুদ্ধ থেকে সৌদির ফিরে আসার পথ রুদ্ধ: বিভক্তি ও দ্বন্দ্বের নতুন সমীকরণমধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধ পরিস্থিতি নতুন মোড় নিল। বিশেষ করে সৌদি জোটের আগ্রাসন বিস্তারের আরও সুযোগ করে দিল ইয়েমেনের হুথিরা। হুথিদের সঙ্গে মিত্রতা ছাড়ার ঘোষণার অল্প কয়েক ঘণ্টা পরেই নিহত হন ইয়েমেনর সাবেক প্রেসিডেন্ট আলী আব্দুল্লাহ সালেহ। সোমবার (৪ ডিসেম্বর) সকালের দিকে সানায় আলী আব্দুল্লাহ সালেহের বাসভবনে হামলা করে হুথিরা।
ইয়েমেনের বর্তমান প্রেসিডেন্ট মনসুর হাদিকে গদিচ্যুত করতে এই হুথিদের সাহায্য নিয়েছিলেন আলী আব্দুল্লাহ সালেহ। ইরানের মদদপুষ্ট শিয়া বিদ্রোহীদের সাহায্যে মনসুর হাদির আসন কাঁপিয়েও দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু, সেই মিত্র হুথি বিদ্রোহীদের হাতেই প্রাণ হারালেন সালেহ।
বিশ্লেষকরা বলছেন, ‘সালেহের হত্যায় বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সৌদি-নেতৃত্বাধীন জোটের লড়াই আরও বেশি তীব্রতর হয়ে ওঠবে।’ 
ইয়েমেন পোস্টের প্রধান সম্পাদক হাকিম আল মাসমারী বলেন, ‘হুথি যোদ্ধাদের হাতে তাদেরই এক সময়কার মিত্র সালেহের মৃত্যু তার বাহিনীর জন্য বড় ধরণের আঘাত।’
ইয়েমেন গৃহযুদ্ধ থেকে সৌদির ফিরে আসার পথ রুদ্ধ: বিভক্তি ও দ্বন্দ্বের নতুন সমীকরণইয়েমেনের রাজধানী সানা থেকে আল জাজিরাকে তিনি বলেন, ‘গত দুই দিন ধরে তাঁর বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখে হুথিরা এবং আজ তাতে হামলা চালায় তারা। তিনি (সালেহে) পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছিলেন। কিন্তু হুথিদের চেকপয়েন্টে এক সংঘর্ষে তিনি নিহত হন। সেখানে একটা গাড়িতে তার লাশ পাওয়া গেছে।  তার সাথে নিহত হন তার কয়েকজন প্রধান সহকর্মীও।’
তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে ইয়েমেন শাসন করেছেন সালেহে। বর্তমান গৃহযুদ্ধ পরিস্থিতি ও রাজনৈতিক সংকটে গুরুত্বপূর্ণ অবস্থান ছিল তার। ইয়েমেনের ওপর হামলা চালানোর জন্য শনিবার এক টেলিভিশন বক্তৃতায় সৌদি জোটকে আহবান করেছিলেন তিনি।
একই সাথে সালেহ হুথি বিদ্রোহীদের সাথে আনুষ্ঠানিকভাবে সম্পর্ক ছিন্ন করেন। তিনি সামরিক জোটের সাথে সংলাপের জন্য আহবান করেন, যারা দুই বছর ধরে বিদ্রোহী জোটের সাথে যুদ্ধ করছিল। 
সালেহের এ ঘোষণায় সৌদি আরব প্রশংসা করলেও হুথিরা তার এ পক্ষাবলম্বনকে বড় ধরণের 'আঘাত' হিসেবে দেখে।
২০১৫ সালে হাদিকে হুথিরা ক্ষমতা থেকে উৎখাত করে। সে বছরই সৌদি আরব মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য সুন্নি মুসলিম দেশ মিলে ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট আবদ-রব্বু মনসুর হাদি সরকারকে ক্ষমতা ফিরিয়ে দেয়ার জন্য দেশটিতে সামরিক হস্তক্ষেপ করে। তাদের পক্ষে আছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রবল সমর্থন। এ বছরই সৌদি আরব সফর গিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সৌদি জোটের পাশে থাকার ঘোষণা দেন।
ইয়েমেন গৃহযুদ্ধ থেকে সৌদির ফিরে আসার পথ রুদ্ধ: বিভক্তি ও দ্বন্দ্বের নতুন সমীকরণসেসময় সালেহের দুর্বল জোটের সাথে হুথিরা যুক্ত হলে শক্তিশালী অবস্থানে চলে যান তিনি। তার জেনারেল পিপলস কংগ্রেস পার্টি(জিপিসি) এবং হুথি আনসারাল্লাহ জোটের মধ্যে সম্পর্কের নতুন মেরুকরণ সৃষ্টি হয়। যদিও এক সময় এক পক্ষ অন্য পক্ষের বিরোধী ছিল। 
মাসমারি বলছেন, ‘সালেহের মৃত্যু দেশটিতে সৌদি জোটের হামলা আরও জোরদার হবে। দুই পক্ষের মধ্য বিভক্তিতে সৌদি জোট হুথি নিয়ন্ত্রিত এলাকায় আরও বেশি বিমান হামলা চালাবে। বিশেষ করে বিমানবন্দর ও সরকারি মন্ত্রণালয়গুলোকে লক্ষ্যবস্তু বানাবে।’ 
ইন্টারন্যাশনাল ক্রাইসিস গ্রুপের মধ্যপ্রাচ্যের প্রোগ্রাম ডিরেক্টর জোওস্ট হিলটারমান বলেন, ‘হুথি ও সালেহ জোটের এ বিভক্তি প্রতিশোধের পর্যায় থেকে আরও বেশি বিভক্তি ও দ্বন্দ্ব বাড়িয়ে তুলবে। সালেহের বাহিনী যে কোন মুহুর্তে হুথি বিরোধী দলের সাথে যোগ দিতে পারে।’
তিনি বলেন, ‘সালেহের ঘোষণার মধ্য দিয়ে পরিস্থিতি যে উন্নতির দিকে যাচ্ছিল বিশেষ করে সৌদি জোটের পক্ষে,  যাতে আরব আমিরাতের বিশেষ ভূমিকা ছিল। তারা আশা করেছিল, সালেহের মাধ্যমে হুথিদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে পারা যাবে। কিন্তু ঘটনা মোড় নিয়ে গেছে ভিন্ন দিকে। এর মাধ্যমে হুথিদের সামরিক শক্তিকে পুরোপুরি ধ্বংস করে দেয়ার পথ বের হয়ে আসল মূলত।’
হিলটারমানের মতে, ‘যদি তারা আকাশপথে হামলা দ্বিগুণ করে তাহলে দেশটির বেসামরিক জনগণ ক্ষতিগ্রস্ত হবে বেশি। ইতিমধ্যে সবচেয়ে বড় মানবিক বিপর্যয় দেখা দিয়েছে সেখানে।’
যুদ্ধ শুরু হবার পর থেকে এ বছরের অক্টোবর মাস পর্যন্ত দেখা গেছে, সেখানে ৮০ শতাংশ ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়ে গেছে। তাদের বেঁচে থাকার জন্য সামান্য অবলম্বনটুকুও অবশিষ্ট নেই। যদিও আন্তর্জাতিক চাপে সাম্প্রতিক দেশটির বন্দর খুলে দিয়েছে সৌদি জোট।
সৌদি জোটের হামলায় সেখানের চিকিৎসা ব্যবস্থা পুরোপুরি ধসে গেছে। সাম্প্রতিক বিশ্বের সবচেয়ে বড় কলেরা মহামারি ছড়িয়ে পড়েছে দেশটিতে। ইতিমধ্যে কয়েক লাখ লোক কলেরায় আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে কয়েক হাজার।
লন্ডন কিংস কলেজের রাজনৈতিক বিশ্লেষক এন্ড্রিজ ক্রেইগ বলেন, ‘খুব অল্প সময়ের মধ্যেই পূর্বের পরিস্থিতির চেয়েও আরও বেশি ব্যর্থ রাষ্ট্রের দিকে চলে  যাবে ইয়েমেন।’
এ বছরের শুরুতে ফাঁস হওয়া কিছু ইমেল বার্তায় দেখা যায়, প্রাক্তন এক মার্কিন কর্মকর্তার সাথে কথা বলার সময় সৌদি আরব ইয়েমেন যুদ্ধের ইতি টানার ইচ্ছা প্রকাশ করে।
তিনি বলেন, ‘সালেহ ছিলেন যোগ্য সমন্বয়ক। তাকে হত্যা করে হুথি বিদ্রোহীরা সমীকরণ পাল্টে দিয়েছে।’ তিনি আরও যোগ করেন, ‘সৌদি আরব চাচ্ছিল 'ব্যয়বহুল' এ যুদ্ধের ইতি টানতে। কিন্তু এখন যুদ্ধ থেকে তাদের ফিরে আসার কোন পথ নাই।’
(কাতার ভিত্তিক আল জাজিরার প্রতিবেদন অবলম্বনে)


পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ


এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
 
বহু ভাষাভাষী মানুষের মাঝেও নিউ ইয়র্কে বাংলা স্থান করে নিচ্ছে
বহু ভাষাভাষী মানুষের মাঝেও নিউ ইয়র্কে বাংলা স্থান করে নিচ্ছে
যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক একটি সদা জাগ্রত নগর। এখানে বসবাস করছেন বহু ভাষাভাষী মানুষ। এ তালিকায় আছে পাঁচ লাখের মতো বাংলাদেশিও। ...
বরগুনায় ২ দিন ব্যাপি বিজ্ঞান মেলার উদ্বোধন
বরগুনায় ২ দিন ব্যাপি বিজ্ঞান মেলার উদ্বোধন
বরগুনায় ২ দিন ব্যাপি জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। সোমবার সকাল ১১ টায় সদর উপজেলা চত্ত্বরে এক ...
বেনাপোল চেকপোস্টে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে দুই বাংলার মানুষ মিলিত হচ্ছেন শুন্য রেখায়
বেনাপোল চেকপোস্টে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে দুই বাংলার মানুষ মিলিত হচ্ছেন শুন্য রেখায়
বেনাপোল চেকপোস্টে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে হাজার হাজার ভাষাপ্রেমী মানুষ মিলিত হচ্ছেন দুই বাংলার শুন্য রেখায়। মাতৃভাষা দিবসকে ঘিরে  সীমান্তে চলছে ...
বেস্ট প্রফেসর অ্যাওয়ার্ড পেলেন গ্রিন ইউনিভার্সিটির ভিসি
বেস্ট প্রফেসর অ্যাওয়ার্ড পেলেন গ্রিন ইউনিভার্সিটির ভিসি
‘বেস্ট প্রফেসর ইন হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন গ্রিন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সামদানী ফকির। মানবসম্পদ উন্নয়নে সেরা ...
শার্শার কৃষকরা অধিক লাভের আশায় ভুট্রা চাষে এগিয়ে এসেছে
শার্শার কৃষকরা অধিক লাভের আশায় ভুট্রা চাষে এগিয়ে এসেছে
বোরো চাষের আগে লাভ জনক ফসল হিসেবে ভুট্রা চাষে এগিয়ে এসেছে শার্শার কৃষকরা। চলতি মৌসুমে ৮০০ বিঘা জমিতে ভুট্রা চাষ ...
মোরেলগঞ্জে কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ: ভোগান্তিতে নিম্ন আয়ের মানুষ
মোরেলগঞ্জে কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ: ভোগান্তিতে নিম্ন আয়ের মানুষ
কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডাররা (সিএইচসিপি) ক্লিনিক বন্ধ রেখে চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে আন্দোলনে অংশ নেয়ায় বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জের ৫১টি ...
কেমন আছেন সেই মৃত্যুঞ্জয়ী সুবর্ণা?
কেমন আছেন সেই মৃত্যুঞ্জয়ী সুবর্ণা?
১৯-০২-২০১৭ দিনটি ছিল রবিবার। অন্যদিনের মত সেদিনও সদ্য ভার্সিটিতে ভর্তি হওয়া সুবর্ণা তার গ্রামের বাড়ি বাগেরহাটের চিতলমারী থেকে এসে ভার্সিটির ...
ভোলায় পুরুষাঙ্গ নিস্তেজ করে বানানো হলো হিজড়া, ক্ষোভে ফুঁসে উঠছে বিক্ষুব্ধ জনতা
ভোলায় পুরুষাঙ্গ নিস্তেজ করে বানানো হলো হিজড়া, ক্ষোভে ফুঁসে উঠছে বিক্ষুব্ধ জনতা
ভোলার চরফ্যাশনে পুরুষাঙ্গ নিস্তেজ করে সাইফুল(১৪) নামের এক যুবককে হিজড়া বানানো হয়েছে। সাইফুল চরফ্যাশন পৌরসভা ১নং ওয়ার্ডের কুলসুমবাগ এলাকার মৃত ...
রহস্যময় পেন্সিল: বইমেলায় আমিনুল ইসলাম মামুনের আরও একটি গল্পের বই
রহস্যময় পেন্সিল: বইমেলায় আমিনুল ইসলাম মামুনের আরও একটি গল্পের বই
বইমেলায় এলো সাহিত্যিক ও সাহিত্য সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম মামুনের আরও একটি গল্পের বই ‘রহস্যময় পেন্সিল’। পঙ্খিরাজ থেকে প্রকাশিত এ গল্পের ...
১০
প্রশ্নপত্র ফাঁসের প্রমাণ মিলেছে: পরীক্ষা বাতিলের বিষয়ে পরে সীদ্ধান্ত
প্রশ্নপত্র ফাঁসের প্রমাণ মিলেছে: পরীক্ষা বাতিলের বিষয়ে পরে সীদ্ধান্ত
এসএসসি’র প্রশ্নপত্র ফাঁসের প্রমাণ পেয়েছে এ বিষয়ে গঠিত যাচাই বাছাই কমিটি। কমিটি জানিয়েছে, এ পর্যন্ত দেখা প্রশ্নপত্রের কোনোটির আংশিক আবার ...
 
বেসিসের সাবেক সভাপতি বেসিসের গঠনতন্ত্র পড়েননি বলে বর্তমান পরিচালকের মন্তব্য
বেসিসের সাবেক সভাপতি বেসিসের গঠনতন্ত্র পড়েননি বলে বর্তমান পরিচালকের মন্তব্য
বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অফ সফটওয়্যার এন্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর সাবেক সভাপতি ফাহিম মাসরুর বেসিসের গঠনতন্ত্র পড়েননি বলে বর্তমান পরিচালক দেলোয়ার ...
পার্বতীপুরে ছোট যমুনা নদীর উপর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
পার্বতীপুরে ছোট যমুনা নদীর উপর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
দিনাজপুরের পার্বতীপুরে ছোট যমুনা নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। আজ সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নেতৃত্বে এ উচ্ছেদ অভিযান ...
তারেক রহমানকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করা নিয়ে বিতর্ক
তারেক রহমানকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করা নিয়ে বিতর্ক
লন্ডনে চিকিৎসাধীন তারেক রহমানকে ‘ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান’ করায় বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে আওয়ামীলীগ পন্থি বুদ্ধিজীবি ও আওয়ামীলীগের নেতারা এই বিষয়ে ...
প্রথম শ্রেণির বন্দি হিসেবে কারাগারে যেসব সুবিধা পাবেন খালেদা জিয়া
প্রথম শ্রেণির বন্দি হিসেবে কারাগারে যেসব সুবিধা পাবেন খালেদা জিয়া
প্রথম শ্রেণির বন্দি হিসেবে কারাগারে সব ধরনের সুবিধা পাবেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তবে সাবেক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তার চাহিদাকেও গুরুত্ব ...
এটা (দন্ড) রাজনৈতিকভাবে হেয় করা ছাড়া আর কিছুই নয়: ইঞ্জি. মোঃ আবু সাঈদ জনি
এটা (দন্ড) রাজনৈতিকভাবে হেয় করা ছাড়া আর কিছুই নয়: ইঞ্জি. মোঃ আবু সাঈদ জনি
বিএনপির চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের কারাদন্ডে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন, জাতীয়তাবাদী টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ ...
রায়ের সার্টিফাইড কপি নিয়েও ‘চক্রান্ত’ চলছে বলে বিএনপির দাবী
রায়ের সার্টিফাইড কপি নিয়েও ‘চক্রান্ত’ চলছে বলে বিএনপির দাবী
এক সপ্তাহ হলো জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় হয়েছে। ৫ বছরের সাজা নিয়ে কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। রায়ের দিনই ...
ঝালকাঠির রানাপাশা ইউপি চেয়ারম্যানের যৌনকামনা থেকে বাঁচতে এসএসসি পরীক্ষার্থীর আকুতী
ঝালকাঠির রানাপাশা ইউপি চেয়ারম্যানের যৌনকামনা থেকে বাঁচতে এসএসসি পরীক্ষার্থীর আকুতী
নলছিটি উপজেলার রানাপাশা ইউপি চেয়ারম্যান, আ’লীগ নেতা,  নারীলোভী ও ল্যম্পট মাসুদুর রহমান ছালাম (৪৫) এর যৌনকামনা চরিতার্থ ও লোলুপ দৃষ্টি ...
ইসরাইল রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতা বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ও রহস্যে ঘেরা পরিবার ‘রথসচাইল্ড’
ইসরাইল রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতা বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ও রহস্যে ঘেরা পরিবার ‘রথসচাইল্ড’
রথচাইল্ড পরিবার টাকার জোরে ইহুদী রাষ্ট্র ইসরাইলের প্রতিষ্ঠা করেন। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় ব্যারন রথসচাইল্ড ব্রিটিশ সরকারকে লোন দেন এই শর্তে, ...
বেবী নাজনীনের কান্নায় খালেদা জিয়ার বাড়ী ফেরা
বেবী নাজনীনের কান্নায় খালেদা জিয়ার বাড়ী ফেরা
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার আগের রাতে অন্য দিনের চেয়ে একটু আগেই বাসায় গেলেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। সাধারণত প্রতিদিন যে ...
১০
জেলে ঢোকার পূর্বে শেষ বার্তায় খালেদা জিয়া যা বললেন
জেলে ঢোকার পূর্বে শেষ বার্তায় খালেদা জিয়া যা বললেন
দুর্নীতি মামলায় ৫ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হওয়ায় কারাগারে নেওয়া হয়েছে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে।পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়ার সময় দলের নেতা-কর্মীদের ...
ইউসুফ আহমেদ (তুহিন)
৭৯/বি, ব্লক বি, এভিনিউ ১, সেকশান ১২, মিরপুর, ঢাকা ১২১৬, বাংলাদেশ
বার্তাকক্ষ : +৮৮০১৯১৫৭৮৪২৬৪, ই-মেইল editor@natun-barta.com, Web : www.Natun-Barta.com.com