আজ মঙ্গলবার, ৮ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ খ্রিস্টাব্দ
 / আদালত / স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের ওপর প্রত্যক্ষ হুমকি পিলখানা হত্যাকাণ্ড: হাইকোর্ট
স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের ওপর প্রত্যক্ষ হুমকি পিলখানা হত্যাকাণ্ড: হাইকোর্ট
নতুন বার্তা, ঢাকা:
Published : Monday, 27 November, 2017 at 3:01 AM
স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের ওপর প্রত্যক্ষ হুমকি পিলখানা হত্যাকাণ্ড: হাইকোর্টপিলখানা হত্যা মামলার রায়ের পর্যবেক্ষণে আদালত বলেছেন, এ হত্যাকাণ্ড ছিল স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের ওপর প্রত্যক্ষ হুমকি। তৎকালীন নবগঠিত সরকারকে অস্থিতিশীল করার পাশাপাশি অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা এবং বহির্বিশ্বে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করাই ছিল এ ষড়যন্ত্রের উদ্দেশ্য।
রবিবার সকাল ১০টা ৫৬ মিনিটে এ মামলার ডেথ রেফারেন্স ও আসামিদের আপিলের রায় পড়া শুরু করেন বিচারপতি মো. শওকত হোসেনের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বৃহত্তর হাইকোর্ট বেঞ্চ। বেঞ্চের অন্য দুই সদস্য হলেন– বিচারপতি মো. আবু জাফর সিদ্দিকী ও বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার। বিকালে রায় পড়ে শোনানো মুলতবি করেন আদালত। আজ (২৭ নভেম্বর) সকাল সাড়ে দশটা থেকে আবারও রায়ের পর্যবেক্ষণ উপস্থাপন শুরু হবে। পর্যবেক্ষণ উপস্থাপন শেষে রায়ের মূল অংশ পড়বেন বিচারপতিরা।
রায়ের পর্যবেক্ষণ পড়ে শোনানোর শুরুতেই আদালত বলেন, ‘মামলার নথিতে সংরক্ষিত কাগজপত্র, বিজ্ঞ কৌঁসুলিদের যুক্তিতর্ক, প্রচলিত ও বিধিবদ্ধ আইনের ব্যাখ্যা, প্রজাতন্ত্রের সার্বভৌমত্ব ও জনগণের জানমালের নিরাপত্তা, গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থায় সাংবিধানিকভাবে আইনের শাসন সমুন্নত রাখা এবং ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে মামলাটির ঐতিহাসিক গুরুত্ব বিবেচনায় এটি একটি ঐতিহাসিক ও যুগান্তকারী রায়। যার প্রেক্ষিত হবে প্রজাতন্ত্রের ভবিষ্যত স্থিতিশীল সমাজ বিনির্মাণে রাষ্ট্রীয় কাঠামোর সর্বস্তরে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য সর্বজনীন টেকসই ও নির্মোহ দৃষ্টান্ত।’
এতে আরও বলা হয়, ‘বাংলাদেশ রাইফেলস এর সদর দফতর ঢাকা পিলখানায় সংগঠিত ইতিহাসের জঘন্যতম ও বর্বরোচিত ঘটনায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৫৭ জন মেধাবী ও প্রতিভাবান অফিসারসহ ৭৪ জন নিরস্ত্র মানুষকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়।’
বিদ্রোহীদের নৃশংসতার কথা তুলে ধরে আদালত বলেন, ‘নারী, শিশুসহ গৃহকর্মীকেও পাশবিকতা থেকে রেহাই দেওয়া হয়নি। অভিযুক্তরা বিদ্রোহের জন্য অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র, নৃশংস হত্যাকাণ্ড, অমানবিক নির্যাতন, বাড়ি ও গাড়িতে অগ্নিসংযোগ, লুটতরাজ,অস্ত্রাগার ও ম্যাগাজিন ভেঙে অস্ত্র ও গোলাবারুদ লুণ্ঠন, গ্রেনেড বিস্ফোরণ, সশস্ত্র মহড়ার মাধ্যমে সন্ত্রাস ও জনজীবনে ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি, লাশ গুম, রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্ব ও স্থিতিশীলতা বিনষ্টের চক্রান্তসহ নানাবিধ জঘন্য অপরাধকর্ম সংগঠিত করে।’
আদালত বলেন, ‘অত্র মামলার ভয়াবহতা, নৃশংসতা, পৈশাচিকতা, বিদ্রোহীদের বিশৃঙ্খলা, রাষ্ট্রের স্থিতিশীলতা বিনষ্টের চক্রান্ত ও সামাজিক নিরাপত্তাসহ সামগ্রিক প্রেক্ষাপট বিবেচনায় এটি রাষ্ট্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ ফৌজদারি মামলা হিসেবে দেশের প্রচলিত আইনি কাঠামোয় ফরিয়াদি, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার, দণ্ড ও সাজাপ্রাপ্ত আপিলকারীগণের আইনানুগ অধিকার সংরক্ষণসহ ব্যতিক্রমধর্মী মামলাটির বিশালত্ব, গুরুত্ব ও গাম্ভীর্যতা বিবেচনায় নিয়ে প্রাসঙ্গিক আলোচনা ও পর্যবেক্ষণ অপরিহার্য।’
আদালত বলেন, ‘দেশের অর্থনৈতিক মেরুদণ্ড ভেঙে দেওয়াসহ স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের ওপর প্রত্যক্ষ হুমকির বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়ে এই নারকীয় নৃশংস ও বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞ চালিয়ে এক কলঙ্কজনক অধ্যায় সৃষ্টির মাধমে নিজেদের ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষেপ করেছে, এই কলঙ্কের চিহ্ন তাদের বহুকাল বহন করতে হবে।’
আদালত তার পর্যবেক্ষণে আরও বলেন, ‘অন্যদিকে, আইনের শাসনের প্রতি শ্রদ্ধা, দেশের সার্বভৌমত্ব, আর্থ-সামাজিক স্থিতিশীলতা রক্ষায় প্রশিক্ষিত, দক্ষ ও সুশৃঙ্খল প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, বিমান বাহিনী ও নৌবাহিনী দেশের সংবিধান ও গণতন্ত্রের প্রতি অগাধ বিশ্বাস ও অবিচল আস্থা রেখে চরম ধৈর্যের সঙ্গে উদ্ভূত ভয়ংকর পরিস্থিতি মোকাবিলার মাধ্যমে পেশাদারিত্বের পরিচয় দিয়ে তারা দেশবাসীর ভালোবাসা ও সুনাম অর্জন করেছে।’
এরপর আদালত তার পর্যবেক্ষণে বাংলাদেশে রাইফেলসের ২১৮ বছরের বর্ণাঢ্য ইতিহাস সংক্ষেপে উপস্থাপন করেন।
আদালত বলেন, ‘২০০৯ সালের বিডিআর বিদ্রোহের মূল লক্ষ্য ছিল সেনা কর্মকর্তাদের জিম্মি করে যেকোনও মূল্যে দাবি আদায় করা; বাহিনীর চেইন অব কমান্ড ধ্বংস করে এই সুশৃঙ্খল বাহিনীকে অকার্যকর করা; প্রয়োজনে সেনা কর্মকর্তাদের নৃশংসভাবে নির্যাতন ও হত্যার মাধ্যমে ভবিষ্যতে সেনা কর্মকর্তাদের বিডিআরে প্রেষণে কাজ করতে নিরুৎসাহিত করা; বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বিডিআরকে সাংঘর্ষিক অবস্থানে দাঁড় করিয়ে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নবনির্বাচিত একটি গণতান্ত্রিক সরকারকে অস্থিতিশীলতার মধ্যে নিপতিত করা, দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা নষ্ট করা; বহির্বিশ্বে  বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করা এবং জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ ক্ষতিগ্রস্ত করা।’
পর্যবেক্ষণে আদালত বলেন, ‘২০০৯ সালের ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকার পিলখানায় বিডিআর বিদ্রোহ মাত্র ৪৮ দিনের নবনির্বাচিত সরকারকে মারাত্মক চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন করে; যা ছিল গণতন্ত্র ও আইনের শাসনের জন্য প্রচণ্ড হুমকিস্বরূপ। বিডিআর সদস্যরা পূর্বপরিকল্পিতভাবে বিদ্রোহের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়, যার চূড়ান্ত বহিঃপ্রকাশ ঘটে ২০০৯ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি সকাল ৯.৩০ মিনিটে বিডিআর সদর দফতর পিলখানার দরবার হলে। উক্ত বিদ্রোহে হত্যাকাণ্ড ছাড়াও নানাবিধ জঘন্যতম অপরাধ সংগঠিত হওয়ার মধ্য দিয়ে মূলত দেশের এই সুশৃঙ্খল আধাসামিরক বাহিনীর অস্তিত্ব বিপর্যয়ে নির্বাসিত হয়।’
এরপর আদালত পিলখানায় অবস্থিত দরবার হলের ওই দিনকার পরিস্থিতি বর্ণনা করেন।
আদালত পর্যবেক্ষণে বলেন, ‘হত্যাকাণ্ডের পর ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার জন্য কিছু লাশ ম্যানহোলের ভেতর, কিছু লাশ স্যুয়ারেজ লাইনের ভেতর ও অধিকাংশ লাশ গুম করার উদ্দেশ্যে বিডিআরের হাসপাতালের মরচুয়ারিতে ও এমটি গ্যারেজের পাশে গণকবর দেওয়া হয়। সেনা কর্মকর্তাদের হত্যা করেই বিদ্রোহীরা ক্ষান্ত হয়নি। বরং লাশের চেহারা পাল্টে দেওয়ার জন্য মৃতদেহে পেট্রল ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে পুড়িয়ে দেওয়ার উদ্যোগ নেয়। বেয়েনোট দ্বারা আঘাত করে লাশের চেহারা বিকৃত করে। ওইসব মৃতদেহ ডিএনএ টেস্টের মাধ্যমে শনাক্ত করা হয়। আসামিরা সেনা অফিসার ও তাদের স্ত্রী ও পরিবারের সদস্যদের মৃতদেহেরে প্রতি কোনও প্রকার শ্রদ্ধা না দেখিয়ে সামাজিক ও ধর্মীয় অনুশাসন প্রতিপালন না করে পুরুষ ও মহিলাদের লাশ অর্ধউলঙ্গ অবস্থায় একত্রে মাটি চাপা দেয়। ভবিষ্যতের কথা ভেবে ঠাণ্ডা মাথায় বিডিআর বিদ্রোহীরা গণকবরের ওপর ইট, কাঠ, গাছপালা ছড়িয়ে ছিটিয়ে রেখে ক্যামোফ্লেজ সৃষ্টি করে, যাতে সেখানে গণকবর আছে তা বোঝা না যায়।’
আদালত এ সময় এই ঘটনায় নিহত ৭৪ জনের নাম পড়ে শোনান। পরে বিচারিক আদালতের রায় তুলে ধরেন হাইকোর্ট। এরপর রায় পড়ে শোনানো আগামীকাল পর্যন্ত মুলতবি রাখা হয়।


পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ


এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
 
বহু ভাষাভাষী মানুষের মাঝেও নিউ ইয়র্কে বাংলা স্থান করে নিচ্ছে
বহু ভাষাভাষী মানুষের মাঝেও নিউ ইয়র্কে বাংলা স্থান করে নিচ্ছে
যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক একটি সদা জাগ্রত নগর। এখানে বসবাস করছেন বহু ভাষাভাষী মানুষ। এ তালিকায় আছে পাঁচ লাখের মতো বাংলাদেশিও। ...
বরগুনায় ২ দিন ব্যাপি বিজ্ঞান মেলার উদ্বোধন
বরগুনায় ২ দিন ব্যাপি বিজ্ঞান মেলার উদ্বোধন
বরগুনায় ২ দিন ব্যাপি জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। সোমবার সকাল ১১ টায় সদর উপজেলা চত্ত্বরে এক ...
বেনাপোল চেকপোস্টে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে দুই বাংলার মানুষ মিলিত হচ্ছেন শুন্য রেখায়
বেনাপোল চেকপোস্টে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে দুই বাংলার মানুষ মিলিত হচ্ছেন শুন্য রেখায়
বেনাপোল চেকপোস্টে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে হাজার হাজার ভাষাপ্রেমী মানুষ মিলিত হচ্ছেন দুই বাংলার শুন্য রেখায়। মাতৃভাষা দিবসকে ঘিরে  সীমান্তে চলছে ...
বেস্ট প্রফেসর অ্যাওয়ার্ড পেলেন গ্রিন ইউনিভার্সিটির ভিসি
বেস্ট প্রফেসর অ্যাওয়ার্ড পেলেন গ্রিন ইউনিভার্সিটির ভিসি
‘বেস্ট প্রফেসর ইন হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন গ্রিন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সামদানী ফকির। মানবসম্পদ উন্নয়নে সেরা ...
শার্শার কৃষকরা অধিক লাভের আশায় ভুট্রা চাষে এগিয়ে এসেছে
শার্শার কৃষকরা অধিক লাভের আশায় ভুট্রা চাষে এগিয়ে এসেছে
বোরো চাষের আগে লাভ জনক ফসল হিসেবে ভুট্রা চাষে এগিয়ে এসেছে শার্শার কৃষকরা। চলতি মৌসুমে ৮০০ বিঘা জমিতে ভুট্রা চাষ ...
মোরেলগঞ্জে কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ: ভোগান্তিতে নিম্ন আয়ের মানুষ
মোরেলগঞ্জে কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ: ভোগান্তিতে নিম্ন আয়ের মানুষ
কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডাররা (সিএইচসিপি) ক্লিনিক বন্ধ রেখে চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে আন্দোলনে অংশ নেয়ায় বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জের ৫১টি ...
কেমন আছেন সেই মৃত্যুঞ্জয়ী সুবর্ণা?
কেমন আছেন সেই মৃত্যুঞ্জয়ী সুবর্ণা?
১৯-০২-২০১৭ দিনটি ছিল রবিবার। অন্যদিনের মত সেদিনও সদ্য ভার্সিটিতে ভর্তি হওয়া সুবর্ণা তার গ্রামের বাড়ি বাগেরহাটের চিতলমারী থেকে এসে ভার্সিটির ...
ভোলায় পুরুষাঙ্গ নিস্তেজ করে বানানো হলো হিজড়া, ক্ষোভে ফুঁসে উঠছে বিক্ষুব্ধ জনতা
ভোলায় পুরুষাঙ্গ নিস্তেজ করে বানানো হলো হিজড়া, ক্ষোভে ফুঁসে উঠছে বিক্ষুব্ধ জনতা
ভোলার চরফ্যাশনে পুরুষাঙ্গ নিস্তেজ করে সাইফুল(১৪) নামের এক যুবককে হিজড়া বানানো হয়েছে। সাইফুল চরফ্যাশন পৌরসভা ১নং ওয়ার্ডের কুলসুমবাগ এলাকার মৃত ...
রহস্যময় পেন্সিল: বইমেলায় আমিনুল ইসলাম মামুনের আরও একটি গল্পের বই
রহস্যময় পেন্সিল: বইমেলায় আমিনুল ইসলাম মামুনের আরও একটি গল্পের বই
বইমেলায় এলো সাহিত্যিক ও সাহিত্য সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম মামুনের আরও একটি গল্পের বই ‘রহস্যময় পেন্সিল’। পঙ্খিরাজ থেকে প্রকাশিত এ গল্পের ...
১০
প্রশ্নপত্র ফাঁসের প্রমাণ মিলেছে: পরীক্ষা বাতিলের বিষয়ে পরে সীদ্ধান্ত
প্রশ্নপত্র ফাঁসের প্রমাণ মিলেছে: পরীক্ষা বাতিলের বিষয়ে পরে সীদ্ধান্ত
এসএসসি’র প্রশ্নপত্র ফাঁসের প্রমাণ পেয়েছে এ বিষয়ে গঠিত যাচাই বাছাই কমিটি। কমিটি জানিয়েছে, এ পর্যন্ত দেখা প্রশ্নপত্রের কোনোটির আংশিক আবার ...
 
বেসিসের সাবেক সভাপতি বেসিসের গঠনতন্ত্র পড়েননি বলে বর্তমান পরিচালকের মন্তব্য
বেসিসের সাবেক সভাপতি বেসিসের গঠনতন্ত্র পড়েননি বলে বর্তমান পরিচালকের মন্তব্য
বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অফ সফটওয়্যার এন্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর সাবেক সভাপতি ফাহিম মাসরুর বেসিসের গঠনতন্ত্র পড়েননি বলে বর্তমান পরিচালক দেলোয়ার ...
পার্বতীপুরে ছোট যমুনা নদীর উপর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
পার্বতীপুরে ছোট যমুনা নদীর উপর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
দিনাজপুরের পার্বতীপুরে ছোট যমুনা নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। আজ সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নেতৃত্বে এ উচ্ছেদ অভিযান ...
তারেক রহমানকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করা নিয়ে বিতর্ক
তারেক রহমানকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করা নিয়ে বিতর্ক
লন্ডনে চিকিৎসাধীন তারেক রহমানকে ‘ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান’ করায় বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে আওয়ামীলীগ পন্থি বুদ্ধিজীবি ও আওয়ামীলীগের নেতারা এই বিষয়ে ...
প্রথম শ্রেণির বন্দি হিসেবে কারাগারে যেসব সুবিধা পাবেন খালেদা জিয়া
প্রথম শ্রেণির বন্দি হিসেবে কারাগারে যেসব সুবিধা পাবেন খালেদা জিয়া
প্রথম শ্রেণির বন্দি হিসেবে কারাগারে সব ধরনের সুবিধা পাবেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তবে সাবেক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তার চাহিদাকেও গুরুত্ব ...
এটা (দন্ড) রাজনৈতিকভাবে হেয় করা ছাড়া আর কিছুই নয়: ইঞ্জি. মোঃ আবু সাঈদ জনি
এটা (দন্ড) রাজনৈতিকভাবে হেয় করা ছাড়া আর কিছুই নয়: ইঞ্জি. মোঃ আবু সাঈদ জনি
বিএনপির চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের কারাদন্ডে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন, জাতীয়তাবাদী টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ ...
রায়ের সার্টিফাইড কপি নিয়েও ‘চক্রান্ত’ চলছে বলে বিএনপির দাবী
রায়ের সার্টিফাইড কপি নিয়েও ‘চক্রান্ত’ চলছে বলে বিএনপির দাবী
এক সপ্তাহ হলো জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় হয়েছে। ৫ বছরের সাজা নিয়ে কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। রায়ের দিনই ...
ঝালকাঠির রানাপাশা ইউপি চেয়ারম্যানের যৌনকামনা থেকে বাঁচতে এসএসসি পরীক্ষার্থীর আকুতী
ঝালকাঠির রানাপাশা ইউপি চেয়ারম্যানের যৌনকামনা থেকে বাঁচতে এসএসসি পরীক্ষার্থীর আকুতী
নলছিটি উপজেলার রানাপাশা ইউপি চেয়ারম্যান, আ’লীগ নেতা,  নারীলোভী ও ল্যম্পট মাসুদুর রহমান ছালাম (৪৫) এর যৌনকামনা চরিতার্থ ও লোলুপ দৃষ্টি ...
ইসরাইল রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতা বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ও রহস্যে ঘেরা পরিবার ‘রথসচাইল্ড’
ইসরাইল রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতা বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ও রহস্যে ঘেরা পরিবার ‘রথসচাইল্ড’
রথচাইল্ড পরিবার টাকার জোরে ইহুদী রাষ্ট্র ইসরাইলের প্রতিষ্ঠা করেন। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় ব্যারন রথসচাইল্ড ব্রিটিশ সরকারকে লোন দেন এই শর্তে, ...
বেবী নাজনীনের কান্নায় খালেদা জিয়ার বাড়ী ফেরা
বেবী নাজনীনের কান্নায় খালেদা জিয়ার বাড়ী ফেরা
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার আগের রাতে অন্য দিনের চেয়ে একটু আগেই বাসায় গেলেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। সাধারণত প্রতিদিন যে ...
১০
জেলে ঢোকার পূর্বে শেষ বার্তায় খালেদা জিয়া যা বললেন
জেলে ঢোকার পূর্বে শেষ বার্তায় খালেদা জিয়া যা বললেন
দুর্নীতি মামলায় ৫ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হওয়ায় কারাগারে নেওয়া হয়েছে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে।পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়ার সময় দলের নেতা-কর্মীদের ...
ইউসুফ আহমেদ (তুহিন)
৭৯/বি, ব্লক বি, এভিনিউ ১, সেকশান ১২, মিরপুর, ঢাকা ১২১৬, বাংলাদেশ
বার্তাকক্ষ : +৮৮০১৯১৫৭৮৪২৬৪, ই-মেইল editor@natun-barta.com, Web : www.Natun-Barta.com.com